দুবাইয়ে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ফতোয়া সেবা চালু

8

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স) ব্যবহার করে ইসলামিক ফতোয়া প্রদানে ‘ভার্চুয়াল ইফতা’ নামের একটি সেবা চালু করেছে। বিশ্বে প্রথমবারের মতো এই সেবা চালু হয়েছে।

মঙ্গলবার দুবাইয়ের আমিরাতি টাওয়ারে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ‘ভার্চুয়াল ইফতা’ প্রযুক্তি উদ্বোধন করে দুবাইয়ের ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড চ্যারিটেবল অ্যাক্টিভিটিস দফতর (আইএসিএডি)।

একজন ইসলামিক পণ্ডিত বা মুফতীর পরিবর্তে, আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স-চালিত এই ‘ভার্চুয়াল ইফতা’ ইন্টারনেট চ্যাটে প্রশ্নকারীদের ইসলামিক নানা বিষয়ে প্রশ্ন লাইভ গ্রহণ করবে এবং জবাবও দিবে।

ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড চ্যারিটেবল অ্যাক্টিভিটিস দফতর (আইএসিএডি) এর প্রধান তারিক আল ইমাদি জানিয়েছেন এই মুহূর্তে এটি নামাজ সম্পর্কিত প্রায় ২০৫ টি প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম।

২৪/৭ পরিচালিত এই ‘ভার্চুয়াল ইফতা’ পরিষেবাটি “দুবাই ১০ এক্স” কর্মসূচির আওতার অধীনে সামঞ্জস্য রেখে চালু করা হয়েছে। মূলত “দুবাই ১০ এক্স” কর্মসূচি হচ্ছে সরকারি সেবা প্রদান ও সমস্যা সমাধানে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে অন্যান্য শহর থেকে দুবাইকে দশ বছর এগিয়ে থাকা শহর হিসেবে তুলে ধরার জন্য দুবাই সরকারের একটি গৃহীত পদক্ষেপ।

এই ভার্চুয়াল ইফতা প্রযুক্তি প্রদর্শনীর জন্য তিন দিনের অনুষ্টান আয়োজন করা হয়েছে দুবাইয়ের আমিরাতি টাওয়ারে। দর্শনার্থীরা এই প্রদর্শনীতে সরাসরি এর কার্যক্রম প্রত্যক্ষ করতে পারবে। এছাড়া দিনে দিনে ফতোয়া দেওয়ার প্রক্রিয়ায় কেমন করে বিবর্তন এসেছে, একটি ভিডিও’র মাধ্যমে তাও দেখতে পারবে।

প্রথম পরীক্ষামূলক পর্যায়ে, আইএসিএডি ওয়েবসাইট, www.iacad.gov.ae- এর মাধ্যমে আরবি এবং ইংরেজিতে আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স-চালিত এই পরিষেবা পাওয়া যাবে। তবে পরবর্তী ধাপে হোয়াটসঅ্যাপ অন্তর্ভুক্ত করা হবে। ফতোয়ার অংশ হিসেবে রোজা, পবিত্রতা এবং অজু করার মতো আরও বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

দুবাইয়ের আইএসিএডি’র ফতোয়া বিভাগের প্রধান তারিক আল এমাদি জানান, প্রথম পর্যায়ে এই সেবা পাওয়া যাবে আরবি ও ইংরেজি ভাষায়। সার্বক্ষণিক সচল এই প্রযুক্তি প্রাথমিকভাবে আইএসিএডি’র ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ব্যবহার করতে হবে। তবে পরবর্তী ধাপে হোয়াটসঅ্যাপেও এই প্রযুক্তি যোগ করা হবে। সঙ্গে বাড়বে ফতোয়া সংক্রান্ত বিষয়ের পরিসরও। যুক্ত হবে রোজা, পবিত্রতা ও গোছল এবং আর্থিক বিষয়ও। ভবিষ্যতে ভাষার সংখ্যাও বাড়বে বলে জানান তারিক আল এমাদি।

বর্তমানে যে কেউ, যেকোনও জায়গা থেকে, যে কোনও সময়ে আইএসিএডি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভার্চুয়াল ইফতা ব্যবহার করতে পারবে। তবে খুব শিগগিরই আইএসিএডি স্মার্ট অ্যাপ অ্যাপল স্টোর ও গুগলের প্লে স্টোর থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে।

ফতোয়া বিভাগের প্রধান তারিক আল এমাদি জানান ভবিষ্যতে মানুষ ভার্চুয়াল ইফতা’র মাধ্যমে অডিও উত্তর শুনতে পারবে। এমনকি লিখিত জবাবও পাবে। ব্যবহারকারীরা যেকোনও প্রশ্ন করতে পারবে বলে জানান তিনি। তিন বলেন, এটা একটা বুদ্ধিবৃত্তিক প্রক্রিয়া, ভার্চুয়াল ইফতা আপনাকে বুঝতে পারবে। তবে এটি যদি আপনার প্রশ্নটি ঠিক বুঝে উঠতে না পারে তাহলে আপনাকে কয়েকটি বিকল্প দেবে আপনার প্রশ্নটি বুঝে নিতে।