শস্যদানার বদলে ঘোষণাবর্হিভূত পানীয় আমদানি : স্টার অ্যালায়েন্স’র রাজস্ব ফাঁকি!

47

২৪ ঘন্টা চট্টগ্রাম ডেস্ক : ঢাকার গুলশানের উত্তর বাড্ডা এলাকার স্টার অ্যালায়েন্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান ভুট্টা ও মটরশুটি আমদানির ঘোষণা দিয়ে ঘোষণাবর্হিভূত ভাবে কোটি টাকার পানীয় আমদানি করে বড় অংকের রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে।

প্রায় এক বছর আগে ২২ মেট্রিকটন পণ্য নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে আসা কনটেইনারটি বুধবার (২৭ নভেম্বর) খুলে কায়িক পরীক্ষা করলে কাস্টমসের এআরআই শাখার কর্মকর্তাদের হাতে ধরা পড়ে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ঘোষণা বর্হিভূত পণ্য আনার বিষয়টি।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের উপ-কমিশনার নুরউদ্দিন মিলন বলেন, চীনের আনাস পি ট্রেডিং পিটিই লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান থেকে ১৩ মেট্রিকটন সুইটকর্ণ (মিষ্টি ভুট্টার দানা) এবং ৯ মেট্রিকটন কিডনি বিন (মটরশুটি দানা) আমদানির ঘোষণা দিয়ে ব্যাংকে ঋণপত্র (এলসি) খুলেছিল ঢাকার এ প্রতিষ্ঠানটি।

দুই ধরনের শস্যদানা আমদানির ঘোষণা দিলেও গত ২০১৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর বিভিন্ন ধরনের সফট ও হার্ড ড্রিংকস, এনার্জি ড্রিংকস, চকোলেট ও ওয়েফার মিলিয়ে ২২ টন পণ্য নিয়ে কন্টেইনারটি চট্টগ্রাম বন্দরে নোঙ্গর করে।

তিনি বলেন, গত ১৭ জানুয়ারি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চট্টগ্রাম নগরীর শেখ মুজিব রোডের এলিট এন্টারপ্রাইজ নামে একটি সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান পণ্য খালাসের জন্য চট্টগ্রাম কাস্টমসে বিল অব এন্ট্রি দাখিল করলে প্রতিষ্ঠানটি পণ্য খালাসের দায়িত্ব পায়।

এদিকে আমাদানিকৃত কন্টেইনারের উপর কাস্টমসের গোয়েন্দা নজরদারি থাকায় সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানটি দীর্ঘ ১০ মাসেও কন্টেইনারটি খালাস না করে বন্দরের ইয়ার্ডে ফেলে রাখে। বাধ্য হয়ে বুধবার নিজ উদ্দ্যেগে কনটেইনারটির কায়িক পরীক্ষার উদ্যোগ নেন কাস্টমস কর্মকর্তারা।

এতে ৭ লাখ টাকার দুটি শস্যপণ্য আমদানির ঘোষণা দিলেও ঘোষণাবর্হিভূত কোটি টাকার পানীয় পণ্য আমদানির মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি প্রায় ৮০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টি কাস্টমস কর্মকর্তাদের কাছে ধরা পড়ে। এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানান চট্টগ্রাম কাস্টমসের উপ-কমিশনার নুরউদ্দিন মিলন।